অতনু বন্দ্যোপাধ্যায়-এর কবিতা

অতনু বন্দ্যোপাধ্যায়

অতনু বন্দ্যোপাধ্যায়

১। যে জন প্রাণের ভাব জানে না

এক।।

চমৎকার এই মগজের গোড়ায় খানিকটা নিশ্ছিদ্র এখনো পরস্পরের বিশ্বাসঘাতকতার আদর্শে যাবতীয় লিপির উপলব্ধি গুলো মাইলের পর মাইল দেখ হেঁটে যাচ্ছে প্রিয় মাতৃত্বের উদ্দেশ্যে।

দুই।।

প্রহরের বেদনা জ্বালিয়ে প্রকান্ড হচ্ছে শত্রুশিবির পর্বতের শীর্ষ ছুঁয়ে ফেলার জন্য। লাফিয়ে উঠছে থানা চৌকিদার আত্মহননের যাবতীয়।ক্যালেন্ডারের হাতলে বসে আছেন পিতৃদেব আকালের সন্ধানকে চূড়ান্ত করতে।

তিন।।

জ্বলছে আগুন। ভিতরে বাইরে আশ্রয় সাশ্রয় সব সব স্বপ্নকে ওয়েসিসের জন্মান্তরে যথার্থ জনকল্যাণ আর দখল হয়ে যাওয়া জমিগুলোয় লৌকিক ফোঁটাতে। রাষ্ট্র একটা বিধিসম্মত সতর্কীকরণ। স্বীকৃত পরবর্তীগুলি ওই এলো বলে।

চার।।

আপাতত বিস্তার। তার সর্বস্ব নিয়ে নেমে পড়েছে মগজের গুলতি বের করে চেতনায় ধাক্কা মারতে। অপরূপ তার চেহারা। আদর্শ তার উপলব্ধি। আসুন ঈশ্বরকে বরং উল্টেপাল্টে দেখি। তার ভরাট যৌনতা নিয়ে কিছু কথা বলি হারামি সন্ত্রাসের আগে।

 

শেয়ার করুন