অনির্বাণ চট্টোপাধ্যায়-এর কবিতা

Spread This
অনির্বাণ চট্টোপাধ্যায়

অনির্বাণ চট্টোপাধ্যায়

অবাস্তব হাতির গল্প-১
 
সুইচ বোর্ডের পেছনে নাকি লুকিয়ে পড়েছে হাতি
আর ঘন ঘন অন্ধকার হচ্ছে বাড়ি
দমকল ডাকা হল, পশু চিকিৎসক ও বনকর্মীদের ডাকা হল
কিন্তু যথারীতি উধাও হাতি
শোনা যায় নিজের ছায়া জুড়ে জুড়ে ব্রিজ তৈরি ক’রে
পাশের বাড়ি পৌঁছে গিয়েছে
এই প্রসঙ্গান্তর ও ব্রিজ নির্মাণ চলতে থাকে বেশ কিছুদিন ধরে
একদিন জানা যায় আর বাড়ি নেই, সুইচবোর্ড নেই
হাতি ফিরে গেছে জঙ্গলে
 
অবাস্তব হাতির গল্প-২
 
যেদিন হাতির পিঠ থেকে মাহুত ছুটি নিল
আমি বাগান করব স্থির করলাম হাতির পিঠে
ছোট ছোট চারা ফুল, কাগজীলেবু, ধনেপাতা, কালমেঘ
আস্তে ধীরে গাছের শেকড় প্রানীসম্পদ ভবনে প্রবেশ করে
পিঠে বাগান নিয়ে মহিষাদল ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হাতি
 
 
 
ত্রিফলা-১
 
হরিতকী দিয়ে কেক তৈরির কথা ভাবি
ভ্যানিলা এসেন্স রাখে পাড়ার দোকান
বহু উঁচু থেকে থেকে একটি গোলক
নির্দিষ্ট কেক স্পর্শ করে…
 
ত্রিফলা-২
 
বহেড়া গাছের ছায়া লেগে থাকত বাড়িতে
হাতি বেঁধে রাখা হত যত্নে
উহার মস্তিস্ক নাকি বহেড়ার ন্যায় কঠিন ও সুদূরপ্রসারী
পানিনির ব্যাকরণ খন্ড ছিল বাড়িতে, কি রহস্য…
 
ত্রিফলা-৩
 
আমলকির ত্বকে উল্কা এসে ছেঁকা দেয়
টাটকা বায়ুমন্ডলের সাথে উল্কার এই ইকির মিকির চলতেই থাকে
আমলকি ছেঁকা খাইয়া স্বতঃপ্রণোদিত ত্বরণ প্রাপ্ত হয় এবং
আয়ুর্বেদ ও গৃহস্থ ইহাকে পথ্য হিসাবে জ্ঞান করিয়া থাকে