দেবাঞ্জন দাস-এর কবিতা

Spread This

দেবাঞ্জন দাস

আলোর ইন্দ্রিয়

৪.

বৃষ্টি আগেই শুরু হয়েছিল
দস্তানা থেকে ঝরে পড়ছে
ফেলে আসা ঘণ্টাধ্বনি
আলো পেরিয়ে
মহল্লার ফুটবল মাঠ পেরিয়ে
সেই বৃষ্টি আর ঘণ্টাধ্বনির মাঝে
সেলাই হচ্ছে আমাদের দিনগুলো…

খুব শখ ডাঁটা চচ্চড়িকে ইংরেজি নামে ডাকব
ফুলতোলা বাটির ফুল আঁকতে আঁকতে
শেষ করব বিকেল
কেবল এক মহল্লাকে ভালোবাসবো বলে
এক-একটা ধ্বনিকে
এক-একটা গেরস্থের বাড়ি পৌঁছে দেব
কুলি-কামিনরা জল ঢালবে
রক্ত ঢালবে
ক্রমশ নদী হবে ভালোবাসার

তখন ধোওয়া কাপড় গোছাতে গোছাতে
আর যাই হোক
নৌকার কথা কেউ ভাববে না কোনদিন…

৫.

কেউ আসবে—এই অপেক্ষাকে
পাতা কখনও রঙ দিয়ে চেনে না…

সে হেসে হেসে বাতাসকে দোলায়
আর ভাবে বন্ধুত্ব এক চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত
ভাত-সন্ধ্যার আগে
এই বারান্দাটুকু আমার প্রিয়
এখানেই যুদ্ধ হয় পাতার
বাতাস ঝড় হয়ে যায়
দমকা দিয়ে ভাতের সাথে তখন
ওড়ে গাছ-কোমরের শাড়ি
দু’ফোঁটা ঘাম…